মঙ্গলবার | ১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

A National Daily In Bangladesh

চুরির ঘটনা নয়, ইউএনও ওয়াহিদার ওপর আক্রমণ পরিকল্পিত

চুরির ঘটনা নয়, ইউএনও ওয়াহিদার ওপর আক্রমণ পরিকল্পিত

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানমের ওপর হামলা কোনো চুরির ঘটনা নয় দাবি করে বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন দাবি করেছে, বিভিন্ন স্বার্থান্বেষী মহল বেআইনি তদবিরে ব্যর্থ হয়ে প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে।

শনিবার বিকেলে রাজধানীর বিয়াম মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ এসব কথা বলেন।

এসময় সংগঠনের মহাসচিব ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব শেখ ইউসুফ হারুন এবং স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ও অফিসার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মেজবাহ উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

গত বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাতে ইউএনও’র সরকারি বাসভবনের ভেন্টিলেটর ভেঙে বাসায় ঢুকে ওয়াহিদা ও তার বাবার ওপর হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় ইউএনওকে প্রথমে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (রমেক) ভর্তি করা হয়। এরপর তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য হেলিকপ্টারে করে তাকে ঢাকায় আনা হয়। তিনি বর্তমানে রাজধানীর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এ ঘটনায় গ্রেফতারকৃত একজনের উদ্ধৃতি দিয়ে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) জানায়, চুরির উদ্দেশ্যে তারা বাসায় ঢুকেছিল এবং বাধা দেওয়ায় হামলা চালানো হয়।

লিখিত বক্তব্যে হেলালুদ্দীন বলেন, ইতোমধ্যে দু’জন দুর্বৃত্তকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী গ্রেফতার করেছে। আমরা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। কিন্তু কোনো কোনো মহল ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য ‘বিচ্ছিন্ন ও চুরির ঘটনা’ বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছেন।

‘অ্যাসোসিয়েশন মনে করে এটি কোনো চুরির ঘটনা নয়। কারণ দুর্বৃত্তরা কোনো প্রকার জিনিস বা সম্পদ চুরি করেনি। এটি একটি পরিকল্পিত আক্রমণের ঘটনা এবং এর সঙ্গে আরও অনেক ব্যক্তি জড়িত থাকতে পারেন।’

অ্যাডমিনিস্ট্রেশন সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি বলেন, ইউএনও ওয়াহিদা একজন সৎ, নির্লোভ ও নির্ভীক কর্মকর্তা। তিনি কোনো দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেন না। বিভিন্ন স্বার্থান্বেষী মহল বেআইনি তদবিরে ব্যর্থ হয়ে প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে। বিষয়টি সঠিকভাবে তদন্ত হলে প্রকৃত ঘটনা বেরিয়ে আসবে।

অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে এ হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে ঘটনা তদন্ত করে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করে দুর্বৃত্তদের আইনের আওতায় আনার জোর দাবি জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।

নিউরো সায়েণ্স হাসপাতালে ওয়াহিদার মস্তিস্কে অপারেশন হয়েছে উল্লেখ করে হেলালুদ্দীন বলেন, বর্তমানে তিনি নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। আমরা প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি যে, তিনি রংপুর থেকে হেলিকপ্টারে করে তাকে ঢাকায় এনে উন্নত চিকিৎসার সুযোগ করে দিয়েছেন। আমরা সবার কাছে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।

এক প্রশ্নে সংগঠনের মহাসচিব শেখ ইউসুফ হারুন বলেন, যদি আমরা সুনির্দিষ্টভাবে কথা বলি তাহলে কিন্তু তদন্ত কার্যক্রম ব্যাহত হতে পারে।

‘তবে আমরা দেখেছি, ইউএনও ওয়াহিদা ইদানিংকালে কিছু উচ্ছেদ করেছেন। উচ্ছেদ করার জন্য কিছু লোকজন তার ওপর সংক্ষুব্ধ হয়েছেন। ওখানে বালুমহালে অবৈধভাবে বালু তুলতে সে বাধা দিয়েছিল। এ সমস্ত কারণে প্রভাবশালী কেউ হয়তো তার ওপর ক্ষিপ্ত হতে পারেন। সেটির বহিঃপ্রকাশ এভাবে হতে পারে বলে আমরা মনে করি। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এটি তদন্ত করছে, সুনির্দিষ্টভাবে কাউকে উদ্দেশ্য করে আমরা কিছু বলতে পারছি না।’

সংবাদ সম্মেলনে অ্যাডমিনিস্ট্রেশন সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি বলেন, আমরা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি যে, কিছু কিছু দুর্বৃত্ত ও সমাজবিরোধী ব্যক্তি এ সংগঠনের সদস্যদের দ্বারা বেআইনি কাজ করাতে ব্যর্থ হয়ে পরিকল্পিতভাবে হামলা ও মামলা-মোকদ্দমা দায়ের করে সদস্যদের মনোবল দুর্বল করে দিচ্ছে। প্রকৃত অর্থে এতে ক্ষতি হচ্ছে দেশ ও জনগণ।

ইউএনওদের নিরাপত্তায় ইতোমধ্যে সরকার সশস্ত্র আনসার মোতায়েন করেছে উল্লেখ করে হেলালুদ্দীন বলেন, আমরা ব্যাটালিয়ন আনসার নিয়োগের দাবি করছি।

মাদারীপুর ডিসি’র মামলা প্রত্যাহারের দাবি
সংবাদ সম্মেলনে হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, ইতোমধ্যে আপনারা শুনেছেন মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুনের বিরুদ্ধে কতিপয় অবৈধ বালু উত্তোলনকারী ও একজন প্রভাবশালী ব্যক্তির প্ররোচণায় ফৌজদারি আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আদালত মামলাটি তদন্ত করার জন্য পিআইবি’র কাছে পাঠিয়েছেন। অসংলগ্ন কথাবার্তায় ভর্তি এ রকম একটি আর্জির ভিত্তিতে একজন জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের বিরুদ্ধে মামলা নজিরবিহীন এবং দুর্ভাগ্যজনকও বটে। এভাবে যদি মামলা গ্রহণ করা হয় তাহলে জেলা প্রশাসন কী করে তার দায়িত্ব পালন করবে? আমরা অবিলম্বে এ মামলাটি সম্পূর্ণভাবে প্রত্যাহারসহ মিথ্যা মামলা দায়েরকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাচ্ছি। একইসঙ্গে আমরা খুঁজছি কোন সেই প্রভাবশালী যে মামলা করেছেন।

Facebook Comments

Posted ২:২৩ অপরাহ্ণ | শনিবার, ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

dailymatrivumi.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক
মোহাম্মদ নুরুজ্জামান মুন্না
প্রকাশক ও ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মশি শ্রাবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়

রূপায়ন করিম টাওয়ার, ৮০ কাকরাইল, ভিআইপি রোড, রমনা ঢাকা।
ফোন : ০২৪৮৩২২৮৮০
email : matrivumi@gmail.com

মিরর মাল্টি মিডিয়া প্রডাকশন লি: এর পক্ষে প্রকাশক মশি শ্রাবন কর্তৃক বি.এস.প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবী সার্কুলার রোড (মামুন ম্যানশন, গ্রাউন্ড ফ্লোর), থানা-ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।