বৃহস্পতিবার | ১৩ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩০শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

A National Daily In Bangladesh

বাংলাদেশের কোথাও আর নদী ভাঙন থাকবে না

বাংলাদেশের কোথাও আর নদী ভাঙন থাকবে না

পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম বলেছেন, শুধু বর্ষা আসলেই জরুরী ভিত্তিতে জিও ব্যাগ ফেলে নদী ভাঙনরোধ করার চেষ্টা নয়, বর্ষার পূর্বেই পর্যায়ক্রমিকভাবে সকল ঝুঁকিপূর্ণ নদী ভাঙন প্রবন এলাকাতে আমরা কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। ফলে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে বাংলাদেশের কোথাও আর নদী ভাঙন থাকবে না।

আজ সকালে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় মেঘনা নদীর ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন ও ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি আরো বলেন, গজারিয়ায় মেঘনা নদীর তীরবর্তী ভাঙন প্রবন দেড় কিলোমিটার এলাকায় স্থায়ী প্রতিরক্ষামূলক বাঁধ নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনে বাঁধের দৈর্ঘ্য আরো বাড়ানো হবে। আগামী বর্ষার আগেই বাঁধ নির্মাণের কাজ শেষ করা হবে বলে জানান তিনি।

সমগ্র মুন্সীগঞ্জ জেলায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের অধীনে ৪৩৪ কোটি টাকার কাজ চলমান উল্লেখ করে তিনি জানান, মুন্সীগঞ্জ শহররক্ষা বাঁধের ভাঙা অংশের মেরামত কাজ দ্রুততম সময়ের মধ্যেই শুরু করা হবে।

এসময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক ও মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস, পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী বেলায়েত হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( রাজস্ব) সাইফুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মুন্সীগঞ্জ সার্কেল) আশরাফুজ্জামান, গজারিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আমিরুল ইসলাম, গজারিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাসান সাদী প্রমুখ।

Facebook Comments

Posted ৯:৪৯ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০

dailymatrivumi.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক
মোহাম্মদ নুরুজ্জামান মুন্না
প্রকাশক ও ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মশি শ্রাবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়

রূপায়ন করিম টাওয়ার, ৮০ কাকরাইল, ভিআইপি রোড, রমনা ঢাকা।
ফোন : ০২৪৮৩২২৮৮০
email : matrivumi@gmail.com

মিরর মাল্টি মিডিয়া প্রডাকশন লি: এর পক্ষে প্রকাশক মশি শ্রাবন কর্তৃক বি.এস.প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবী সার্কুলার রোড (মামুন ম্যানশন, গ্রাউন্ড ফ্লোর), থানা-ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।