সোমবার | ১৯শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

A National Daily In Bangladesh

লালমনিরহাটে শিলাবৃষ্টিতে ফসলের ক্ষতি

লালমনিরহাটে শিলাবৃষ্টিতে ফসলের ক্ষতি

লালমনিরহাট জেলার ওপর দিয়ে বয়ে গেছে মাঝারি আকারের শিলাবৃষ্টি। এতে বোরো ধানসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতির শঙ্কা করছেন চাষিরা।

বুধবার (৭ এপ্রিল) রাতে ১১টার দিকে হঠাৎ শিলাবৃষ্টি শুরু হয়। যা  এলাকা ভেদে টানা ৫ থেকে ১০ মিনিটের অধিক সময় স্থায়ী ছিল।

স্থানীয়রা জানান, রাত ১১টার দিকে হঠাৎ লালমনিরহাটের আকাশ কালো মেঘে ছেঁয়ে গর্জন শুরু হয়। এর কিছু সময় পর শুরু হয় শিলাবৃষ্টি।  ৫ থেকে ১০ মিনিট স্থায়ী ছিল শিলাবৃষ্টি। ছোট থেকে মাঝারি আকারে শিলার আঘাতে বোরো ধানসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতির শঙ্কায় চিন্তিত জেলার চাষিরা। শুধু বোরো ধানই নয় শিলাবৃষ্টিতে ভুট্টা, তরমুজ, মিষ্টি কুমড়া, বাদাম, পেঁয়াজ ও মরিচসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতির শঙ্কা রয়েছে।

বোরো চাষি তাহাজুল ইসলাম জানান, বোরো ধান প্রায় মধ্য বয়স অতিক্রম করেছে। কিছু দিনের মধ্যে শীষ বের হবে। এমন ধান ক্ষেতে শিলার আঘাতে নষ্ট হওয়ার ব্যাপক সম্ভবনা রয়েছে। ধান চিটা হয়ে যেতে পারে। ফলে ফলন অনেকাংশ কমে হবে। অনেক কষ্টে চাষ করা বোরো ধান চিটা হলে পরিবারের খাদ্য যোগানো অসম্ভব হয়ে পড়বে।

পেঁয়াজ চাষি আজিজুল ইসলাম জানান, আগাম জাতের পেঁয়াজ ইতোমধ্যে ক্ষেত থেকে উঠে গেছে। কিন্তু কিছু পেঁয়াজ এখনো ক্ষেতে রয়েছে। যা অল্প কিছু দিন হলে সংগ্রহ করা যেতো। শিলাবৃষ্টির কারণে পেঁয়াজ পচে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। পেঁয়াজ পচে গেলে উৎপাদন খরচও উঠবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

কৃষকলীগ নেতা বাদশা আলম জানান, হঠাৎ মাঝারি আকারের শিলাবৃষ্টিতে বোরো ধান ও সবজিসহ ফসলের ক্ষতির শঙ্কা রয়েছে। শিলাবৃষ্টিতে কৃষকরা ফসলহানীর শঙ্কাও করছেন।

Facebook Comments

Posted ২:৩৯ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৮ এপ্রিল ২০২১

dailymatrivumi.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক
মোহাম্মদ নুরুজ্জামান মুন্না
প্রকাশক ও ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মশি শ্রাবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়

রূপায়ন করিম টাওয়ার, ৮০ কাকরাইল, ভিআইপি রোড, রমনা ঢাকা।
ফোন : ০২৪৮৩২২৮৮০
email : matrivumi@gmail.com

মিরর মাল্টি মিডিয়া প্রডাকশন লি: এর পক্ষে প্রকাশক মশি শ্রাবন কর্তৃক বি.এস.প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবী সার্কুলার রোড (মামুন ম্যানশন, গ্রাউন্ড ফ্লোর), থানা-ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।